মেনু নির্বাচন করুন
পাতা

বেদে ও অনগ্রসর জনগোষ্ঠীর বিশেষ বয়স্ক ভাতা

পটভূমি:

বেদে ও অনগ্রসর জনগোষ্ঠী বাংলাদেশের জনসংখ্যার একটি ক্ষুদ্র অংশ। সমাজসেবা অধিদফতরের জরিপমতে বাংলাদেশে প্রায় ১৩, ২৯,১৩৫ জন অনগ্রসর জনগোষ্ঠী এবং ৭৫,৭০২ জন বেদে জনগোষ্ঠী রয়েছে।  জেলে, সন্যাসী, ঋষি, বেহারা, নাপিত, ধোপা, হাজাম, নিকারী, পাটনী, কাওড়া, তেলী,পাটিকর , বাঁশফোর, ডোমার, রাউত, তেলেগু, হেলা, হাড়ি, লালবেগী, বাল্মিগী, ডোম ইত্যাদি তথাকথিত নিম্নবর্ণের জনগোষ্ঠী এ অনগ্রসর  সম্প্রদায়ভুক্ত।

 

বেদে ও অনগ্রসর জনগোষ্ঠীর জীবনমান উন্নয়নের লক্ষ্যে ২০১২-২০১৩ অর্থ বছরে পাইলট কর্মসূচির মাধ্যমে ৭টি জেলায় এ কার্যক্রম শুরু হয়। ২০১২-১৩ অর্থবছরে বরাদ্দ ছিল ৬৬, ০০,০০০ (ছিষট্টি লক্ষ) টাকা। ২০১৫-১৬ অর্থ বছরে এই কার্যক্রম ৬৪ জেলায় সম্প্রসারন করা হয়েছে এবং বরাদ্দকৃত অর্থের পরিমাণ ১৮ কোটি টাকা। ২০১৮-১৯ অর্থ বছরে ৬৪ জেলায় বরাদ্দকৃত অর্থের পরিমাণ ৫০ কোটি ০৩ লক্ষ টাকা।

 

লক্ষ্য  উদ্দেশ্য:

  • স্কুলগামী বেদে ও অনগ্রসর শিক্ষার্থীদের শিক্ষিত করে গড়ে তোলার লক্ষ্যে ৪ স্তরে (জনপ্রতি মাসিক প্রাথমিক ৩০০, মাধ্যমিক ৪৫০, উচ্চ মাধ্যমিক ৬০০ এবং উচ্চতর ১০০০ টাকা হারে) উপবৃত্তি প্রদান ;
  • বৃত্তিমূলক প্রশিক্ষণের মাধ্যমে কর্মক্ষম বেদে ও অনগ্রসর জনগোষ্ঠীর দক্ষতা বৃদ্ধি ও আয়বর্ধনমূলক কর্মকান্ডে সম্পৃক্ত করে তাদের সমাজের মূলস্রোতধারায় আনয়ন;
  • ৫০ বছর বা তদুর্ধ্ব বয়সের অক্ষম ও অসচ্ছল ব্যক্তিকে বিশেষ ভাতা জনপ্রতি মাসিক ৫০০ টাকা প্রদান।
  • প্রশিক্ষণোত্তর পুর্নবাসন সহায়তা ১০,০০০/-(দশ হাজার) টাকা।

ফকিরহাট উপজেলায় বেদে ও অনগ্রসর জনগোষ্ঠীর বিশেষ বয়স্কভাতা বৃদ্ধির পরিসংখ্যান:

সময়কাল

উপকারভোগীর সংখ্যা

মাসিক ভাতা

বরাদ্দের পরিমাণ

২০১৫-১৬

২০ জন

৪০০ টাকা

৯৬,০০০ টাকা

২০১৬-১৭

২০ জন

৫০০ টাকা

১,২০,০০০ টাকা

২০১৭-১৮

২৪ জন

৫০০ টাকা

১,৪৪,০০০ টাকা

 

 

ফকিরহাট উপজেলায় বেদে ও অনগ্রসর জনগোষ্ঠীর শিক্ষা উপবৃত্তি বৃদ্ধির পরিসংখ্যান:

সময়কাল

উপকারভোগীর সংখ্যা

সর্বমোট

প্রাথমিক স্তর

মাধ্যমিক স্তর

উচ্চ মাধ্যমিক স্তর

উচ্চতর স্তর

২০১৫-১৬

১০ জন

০৬ জন

০৪ জন

০২ জন

২২ জন

২০১৬-১৭

১০ জন

০৬ জন

০৪ জন

০২ জন

২২ জন

২০১৭-১৮

১২ জন

০৭ জন

০৪ জন

০২ জন

২৫ জন

 

 

সেবা প্রদান পদ্ধতি (সংক্ষেপে):

বরাদ্দ প্রাপ্তি সাপেক্ষে উপজেলা / শহর  সমাজসেবা অফিসার বিজ্ঞপ্তি প্রচার করেন। অত:পর নির্ধারিত ফরমে আগ্রহী ব্যক্তিদের সমাজসেবা অফিসার বরাবর আবেদন করতে হয় । প্রাপ্ত আবেদন ইউনিয়ন কমিটি কর্তৃক সরেজমিনে যাচাই-বাছাই করে প্রস্তাব আকারে উপজেলা কমিটিতে প্রেরণ করা হয়। অত:পর উপজেলা কমিটি  যাচাই বাছাই করে বরাদ্দ অনুসারে উপকারভোগী নির্বাচন করে। নির্বাচিত ব্যক্তির নামে ব্যাংক হিসাব খোলা এবং কেন্দ্রীয় হিসাব হতে ভাতা বা উপবৃত্তির টাকা স্থানান্তর করে নির্বাচিত ব্যক্তিকে অবহিতকরণপূর্বক ভাতা বা উপবৃত্তি বিতরণ সম্পন্ন করা হয় ।

১৮ বছর বয়সের উর্ধ্ব কর্মক্ষম ব্যক্তিদেরকে ট্রেড ভিত্তিক প্রশিক্ষণ প্রদান করা হয় । প্রশিক্ষণার্থীদেরকে প্রশিক্ষণোত্তর অফেরতযোগ্য আর্থিক সহায়তা প্রদান করা হয়।

ছবি


সংযুক্তি


সংযুক্তি (একাধিক)



Share with :

Facebook Twitter